1. news@dainikchattogramerkhabor.com : Admin Admin : Admin Admin
  2. info@dainikchattogramerkhabor.com : admin :
বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৬:০৫ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
জামেয়া মহিলা কামিল মাদরাসায় আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ও মহান শহীদ দিবস উদযাপিত ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে বাংলাদেশ জাতীয় হিন্দু মহাজোটের শ্রদ্ধাঞ্জলি প্রদান প্রি কলেজিয়েট স্কুল অ্যান্ড কলেজে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপন নগরীতে হয়ে গেল হিফজুল কোরআন প্রতিযোগিতা-২০২৪ খাঁটি মানুষ -মোঃ শফিকুল ইসলাম কুড়িগ্রামের রাজারহাটে ঋনের টাকা পরিশোধ করতে ব্যর্থ হয়ে প্রধান শিক্ষকের আত্মহত্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার স্মার্ট বাংলাদেশ গঠনে খেলাধুলার বিকল্প নাই – তসলিম উদ্দীন রানা “একুশ মহান ” মুহাম্মদ আব্দুল হাকিম (খাজা হাবীব) দৈনিক ঘোষণার ৩০ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত বাংলাদেশ অবসরপ্রাপ্ত সরকারি কর্মচারী কল্যাণ সমিতি চট্রগ্রাম জেলা শাখার উদ্যোগে বিভিন্ন প্রকল্পের অনুদান বিতরণ

১২টি দাবি নিয়ে নগরীর চেরাগীর মোড়ে আন্তর্জাতিক আদিবাসী দিবস উদযাপন

  • সময় মঙ্গলবার, ৯ আগস্ট, ২০২২
  • ১৩৭ পঠিত

আব্দুল সাত্তার চট্টগ্রাম:
বাংলাদেশ আদিবাসী ফোরামের উদ্যোগে মঙ্গলবার (৯ আগস্ট) আন্তর্জাতিক আদিবাসী দিবস ২০২২ নগরীর চেরাগীর মোড়ে অনুষ্ঠিত হয়। ১৯৯৪ সালের ২৩ ডিসেম্বর জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদ ৪৯/২১৪ ধারা অনুয়ায়ী প্রতি বছরের ৯ আগস্টকে আদিবাসী দিবস হিসেবে পালনের ঘােষণা দেয়। সেই থেকে বিশ্বের ৯০ টি দেশের প্রায় ৪৭৬ মিলিয়ন আদিবাসী জাতিগােষ্ঠী এই দিবসটি পালনের মাধ্যমে তাদের স্বতন্ত্র সংস্কৃতি, চিরায়ত ঐতিহ্য উপস্থাপনের পাশাপাশি বিভিন্ন দাবি-দাওয়া, অধিকারের কথা রাষ্ট্র এবং বিশ্বের কাছে তুলে ধরে। শতাব্দীকাল ধরে শােষণ, বঞ্চনা ও জাতিগত আগ্রাসনের শিকার হয়ে বিপন্ন হওয়া আদিবাসী জনগােষ্ঠীর স্বকীয় ভাষা, সংস্কৃতি, ঐতিহ্য তথা আদিবাসী জীবন সুরক্ষায় এ দিনটি বিশেষ তাৎপর্য বহন করে। বিশ্বের অন্যান্য দেশের মত বাংলাদেশের আদিবাসী জনগােষ্ঠীও এই দিনটিকে বিশেষ মর্যাদায় পালন করে আসছে। কিন্তু অত্যন্ত দুঃখের বিষয় হলেও সত্য, বিগত সময়ের তুলনায় দেশের আদিবাসীদের উপড় যুগ যুগ ধরে চলমান রাষ্ট্রীয় সহিংসতা, শশাষণ, ভূমি বেদখল, আদিবাসী নারী নির্যাতনসহ নিপীড়নের মাত্রা আরাে বেশী বৃদ্ধি পেয়েছে। কাপেং ফাউন্ডেশনের করা মানবাধিকার রিপাের্ট-২০২১-এ দেখা গেছে শুধুমাত্র ২০২১ সালে রাষ্ট্রীয় বিভিন্ন তথাকথিত উন্নয়ন কর্মকান্ডের নামে আদিবাসীদের প্রায় ১,০৯৬ একর জমি বেদখল করে নেওয়া হয়েছে। ৬ জন আদিবাসী নারী ধর্ষণের শিকার হয়েছে যাদের মধ্যে ২ জনকে ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়েছে। এবছরের এপ্রিল মাসে বান্দরবানের লামায় স্থানীয় আদিবাসীদের ভূমি বেদখলের নিমিত্তে প্রায় ৩৫০ একর জুমভূমি পুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। অন্যদিকে টাঙ্গাইল, মধুপুরের আদিবাসীদের ভূমি দখলের জন্য ইকোপার্ক স্থাপনের প্রক্রিয়া এখনাে চলমান। সিলেটের আদিবাসী খাসিয়াদের পানজুম, পুঞ্জিগুলাে প্রতিনিয়ত বেদখল করার অপচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। শুধু তাই নয়, সমতল এবং পাহাড়ের আদিবাসীদের নিয়ে কাজ করা বিভিন্ন মানবাধিকার কর্মীদের নামে ষড়যন্ত্রমূলক মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করা হচ্ছে। এমনতর এক বাস্তবতায় দেশের আদিবাসী জনগােষ্ঠী আন্তর্জাতিক আদিবাসী দিবস ২০২২ পালন করতে যাচ্ছে, যে সময়ে স্বয়ং দেশের তথ্য মন্ত্রণালয় কর্তৃক গণমাধ্যমগুলােকে, বিভিন্ন প্রগতিশীল ও বুদ্ধিজীবিদের “আদিবাসী” শব্দ ব্যবহার না করার জন্য নির্দেশ দেওয়া হচ্ছে। অথচ বাংলাদেশের সংবিধানে সুস্পষ্ট ভাষায় উল্লেখ করা হয়েছে যে, সংবিধানের কোনাে ধারা বা বিষয় নিয়ে কোনাে বিতর্ক বা মতান্তর দেখা দিলে তার ব্যাখ্যা একমাত্র দেশের সর্বোচ্চ আদালত সুপ্রিম কোর্টই দিতে পারবে। অন্য কোন প্রতিষ্ঠান, গােষ্ঠী বা ব্যক্তি নয়। আর বাংলাদেশে সুপ্রিম কোর্টেরই এক রায়ে দ্ব্যর্থহীন ভাষায় নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে যে, “আদিবাসী শব্দটি ব্যবহারে কোনাে আইনগত বাধ্যবাধকতা নেই। শুধু তাই নয়, বর্তমান সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আন্তর্জাতিক আদিবাসী দিবস-২০০৯ এ দেওয়া এক বাণীতে আদিবাসীদের নিজস্ব পরিচয়ে সব অধিকার ও মর্যাদা প্রতিষ্ঠার ওপর বলিষ্ঠ ভাষায় গুরুত্ব আরােপ করেছিলেন। জাতিসংঘ প্রতিবছর আদিবাসী দিবসের একটি নির্দিষ্ট প্রতিপাদ্য নির্ধারণ করে দেয়। এবছরের প্রতিপাদ্য “The role of Indigenous Women in the Preservation and Transmition of Traditional Knowledge । বাংলাদেশ আদিবাসী ফোরাম জাতিসংঘ ঘােষিত এ মূলসুরের সাথে সংগতি রেখে বাংলায় অনুবাদ করেছে- “ঐতিহ্যগত বিদ্যা সংরক্ষণ ও বিকাশে আদিবাসী নারী সমাজের ভূমিকা।” আদিবাসী নারীরা আদিবাসী সমাজের ইতিহাস ঐতিহ্য সংরক্ষণের মূল চাবিকাঠি। এ বারের আদিবাসী দিবসে বাংলাদেশ আদিবাসী ফোরাম নিম্নোক্ত দাবি জানাচ্ছে ১. সংবিধানে আদিবাসী জনগণের জাতিগত পরিচয় ও আত্ব-নিয়ন্ত্রনের স্বীকৃতি দিতে হবে। ২. বাংলাদেশের আদিবাসীদের রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক, অর্থনৈতিক ও ভূমির অধিকার দিতে হবে। ৩, পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তি যথাযথভাবে বাঙ্কায়ন করতে হবে। এ লক্ষ্যে সময়সূচি ভিত্তিক কর্ম পরিকল্পনা বা রােডম্যাপ ঘােষণা করতে হবে। ভূমি কমিশন আইন অবিলম্বে কার্যকর করতে হবে। ৪. সমতল অঞ্চলের আদিবাসীদের ভূমি সমস্যা সমাধানের জন্য অবিলম্বে ভূমি কমিশন ও মন্ত্রণালয় প্রতিষ্ঠা করতে হবে। ৫. মৌলভীবাজার ও মধুপুরে ইকোপার্ক, গাইবান্ধায় ইপিজেড প্রকল্প, মধুপুরে অরণখােলা মৌজার রিজার্ভ ফরেস্ট ঘােষণা, আমতলী বাইদে লেক নির্মাণ প্রকল্প বাতিল করতে হবে। আদিবাসীদের ভূমিতে সামাজিক বনায়ন, ইকো ট্যুরিজম, ইপিজেড ও অন্য কোন প্রকল্প গ্রহণ ও বাস্তবায়ন করা যাবে না। ৭. আদিবাসীদের উপর সকল নিপীড়ণ নির্যাতন বন্ধ করাসহ সকল মিথ্যা মামলা অবিলম্বে প্রত্যাহার করতে হবে। ৮. বাংলাদেশ জাতীয় সংসদে আদিবাসীদের জন্য আসন সংরক্ষণ করতে হবে এবং সমতলের আদিবাসী অধ্যুষিত অঞ্চলে স্থানীয় সরকার পরিষদে (পৌরসভা, ইউনিয়ন, উপজেলা ও জেলা পরিষদ) আদিবাসীদের জন্য আসন সংরক্ষণ করতে হবে। বাংলাদেশের আদিবাসীদের জন্য শিক্ষা ও চাকরি কোটা পুনর্বহালসহ (১ম ও ২য় শ্রেণী) ও কোটা বৃদ্ধি ও বাস্তবায়ন নিশ্চিত করতে হবে। ১০. জাতীয় বাজেটে আদিবাসী উন্নয়নে বিশেষ বরাদ্ধের ব্যবস্থা করা। ১১. জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদে ২০০৭ সালে গৃহিত আদিবাসী বিষয়ক ঘােষণাপত্র ও আইএলও ১৬৯ নং কনভেনশন অনুসমর্থন ও আইএলও কনভেনশন ১০৭ বাস্তবায়ন করা। ১২. জাতিসংঘ ঘােষিত ৯ আগস্ট ‘আন্তর্জাতিক আদিবাসী দিবস’ রাষ্ট্রীয়ভাবে পালন করা।

খবরটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..
কপিরাইট © ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
ওয়েবসাইট ডিজাইন: ইয়োলো হোস্ট