1. [email protected] : admin :
  2. [email protected] : Admin Admin : Admin Admin
বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২, ০৭:৩১ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
“মুক্ত পাঠাগার” এর চট্টগ্রাম জেলা শাখার ১ম লেখক আড্ডা বাকলিয়ায় ২২ নং বিট পুলিশ ওপেন হাউজ ডে অনুষ্ঠিত সৈয়্যদা মাদিহা আল বাতুল গোল্ডেন A+ পেয়েছে প্রধানমন্ত্রীর জনসভার সফলতা আ জ ম নাছিরের অগ্নিপরীক্ষা চট্টগ্রাম বন্দর ব্যবহারকারী শ্রমিক কর্মচারী লীগের প্রস্তুতি সমাবেশে আ জ ম নাছির উদ্দীন। চট্টগ্রামে শেখ হাসিনার জনসভায় শ্রমিক কর্মচারীদের সর্বোচ্চ অংশগ্রহণ নিশ্চিত করতে হবে -আবুল হোসেন আবু নুসরাত জাহান (ঝুমুর) এসএসসি পরীক্ষায় গোল্ডেন জিপিএ-৫ পেলো। জঙ্গল সলিমপু’রে চিহ্নিত সন্ত্রাসীদের হামলায় আহত ওসমান গনি। পটিয়া ৯৪ এর ফ্যামিলি মিলন মেলা ও মেজবান উপলক্ষে প্রস্তুতি সভা সম্পন্ন গাউসে পাকের শিক্ষা পাঁচ ওয়াক্ত নামায যথাসময়ে আদায় করা- ফাতেহা-ই ইয়াজদাহুম মাহফিলে বক্তারা

সবজির বাজারে আগুন বিপাকে পড়েছে হতদরিদ্র মানুষ।

  • সময় বুধবার, ২৪ আগস্ট, ২০২২
  • ৫৮ পঠিত

মোঃ মনিরুল ইসলাম রিয়াদ, মহানগর প্রতিনিধিঃ

প্রতিদিনেই বাড়ছে নিত্য পণ্যের দাম যেনো নিয়ন্ত্রণের বাহিরে সবকিছুই। অন্য সময়ে দুই একটি পণ্যের দাম বাড়লেও এবার সবপন্যের দাম বাড়ানোর প্রতিযোগিতা চলছে সমানতালে। অনেকদিন ধরেই চলছে এই অবস্থা।অসহায় দরিদ্র লোকজন পড়েছে বিপাকে।বাজারে নেই কোন প্রশাসনিক মনিটরিং ও নেই কোন মূল্য তালিকা। কিনতে হচ্ছে চড়া দামে নিত্য প্রয়োজনীয় জীনিস পত্র। ঠিক কোথায় গন্তব্য ক্ষুব্ধ মানুষ নিজদের মধ্যে বলাবলি করলেও প্রতিকার অজানা। কবে আবার ফিরবে বাজারের স্বাভাবিক অবস্থা এসব আলোচনার কেন্দ্র বিন্দু এখন।

আজকে নগরীর বাকলিয়া থানাধীন তুলাতুলি জামাই বাজারের সবজির মূল্য -কাচাঁ মরিচ ১৪০/১৫০ টাকা, পিঁয়াজ ৪০/৫০টাকা,আলু ২৮ /৩০টাকা, টমেটো ১০০/১২০ টাকা, মূলা ৬০/৭০ টাকা, করলা ৪০/৫০টাকা, পেপে ৩০/৩৫টাকা,বেগুন ৬০/৭০টাকা, সিম ৬০/৭০টাকা, পোটল ৪০/৫০টাকা, শশা ৫০/৬০ টাকা এইরকম লাগামহীন দামে নিম্নবিত্ত, মধ্যবিত্তের ক্রয় ক্ষমতার বাহিরে।

সাধারণ মানুষ বলছেন দ্রব মূল্যের দাম একবার বাড়লেও আর কমার লক্ষণ দেখা যায় না। তাই পন্যের দাম নির্ধারণ,বাজার মনিটরিং না করলে কিছুতেই নিয়ন্ত্রণে আসা সম্ভব না। পর্যবেক্ষণে সরকারি সংস্থাগুলো বলছেন,সবজি উৎপাদন বা সরবরাহে কোন সংকট নেই। সব মিলিয়ে খুচরা বাজারে ৫/১০ টাকার বেশি দাম হওয়ার কথা না। হঠাৎ করেই মাঝেমধ্যেই একটি করে সবজির দাম বাড়িয়ে দেয়া হচ্ছে। খুচরা বাজারে বিক্রি হচ্ছে ৬০/৭০ টাকা কেজি। নিত্যপণ্যের অসহনীয় দর সাধারণ ক্রেতাদের বিশেষ করে করোনায় আয় রোজগার কমে যাওয়ায় মানুষকে এখনো বেশি ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে। কম আয়ে সংসার চালাতে হিমশিম খাচ্ছে সাধারণ মানুষ। সাধারন মানুষ মনে করেন এভাবে পাঁচ দশটি টিম কয়েক টা বাজার পর্যবেক্ষণ করলেই পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়ে আসবে বলে মনে করেন ।এজন্য পুরো বাজার ব্যবস্থাপনাকে একটি সিস্টেমে নিয়ে আসতে হবে।নইলে দামের হেরফের চলতেই থাকবে। তাই গরিব দরিদ্র মানুষের দৃষ্টি শুধু প্রশাসনের উপর। সাধারণ দরিদ্রগামী মানুষ আরো বলেন , বাজার মনিটরিং ও মূল্য তালিকা উপর নজরদারি থাকলে হয়তো একটু হলেও সস্তি মিলবে।

এই বিষয়ে তরকারি ব্যাবসায়ী ওসমানের সাথে কথা বললে তিনি বলেন তেলের দাম দিগুন হওয়াকে দাবী করে বলেন আগে আমাদের গ্রাম থেকে সবজি আনতে যে খরচ দিতে হতো এখন তার দিগুণ দিতে হচ্ছে।আব্দুল হালিম খসরু নামের এক ক্রেতা বলেন সবজির দাম আগের তুলনায় অনেক বেড় গেছে।শুধু মাত্র পেপের দাম স্থিতিশীল আছে অন্যান্য সবজির দাম তুলনাহীন ভাবে বেড়ে গেছে।সবজির দাম বাড়ার কারন জানতে চাইলে তিনি বলেন পরিবহন খরচকে দাবী করেন।বর্তমানে আয়ের সাথে ব্যায়ের সমন্বয় নেই।সরকার কি করলে এই সমাধান পাওয়া যাবে জানতে চাইলে তিনি বলেন ভোক্তাদের কে যদি সরাসরি নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিস দিতে পারে এবং বাজার মনিটরিং করলে সুফল মিলবে বলে আশা করেন।

খবরটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..
কপিরাইট © ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
ওয়েবসাইট ডিজাইন প্রযুক্তি সহায়তায়: ইয়োলো হোস্ট